কত দিনে কত ব্যাথা ওরে বন্ধু আমি সামলাইয়া থইছি (অংকন)/ koto dine koto byatha ore bondhu ami samlaiya thoichi (Onkhon)

কত দিনে কত ব্যাথা ওরে বন্ধু
শিল্পীঃ অংকন



কত দিনে কত ব্যাথা ওরে বন্ধু
আমি সামলাইয়া থইছি মনে,
ব্যাথার বন্যা বহিয়া যাইব
আমার ব্যাথা
মাইনসে যদি জানে।

থাইকা থাইকা মনে পড়ে গো
পুরান ব্যাথার কথা
অরে আমি হারাইয়া যাই সকল দিশা
সামাল দিব কেমনে,

জানি একদিন খুজবে ব্যাথা,
মানবিক কারণে,
সে দিন আর আমি থাকব না,
প্রেম_পিরিতির বন্ধনে
ব্যাথার বন্যা বহিয়া যাইব,
আমার ব্যাথা মাইনসে যদি জানে।।


কত দিনে কত ব্যাথা ওরে বন্ধু আমি সামলাইয়া থইছি (অংকন)/ koto dine koto byatha ore bondhu ami samlaiya thoichi (Onkhon)

আমার মল্লিকাবনে (রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)/Amar Mollikabone (Rabindranath Tagore)

আমার   মল্লিকাবনে
------রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর



আমার   মল্লিকাবনে যখন প্রথম ধরেছে কলি
তোমার লাগিয়া তখনি, বন্ধু, বেঁধেছিনু অঞ্জলি ॥
          তখনো কুহেলীজালে,    
          সখা,   তরুণী উষার ভালে
শিশিরে শিশিরে অরুণমালিকা উঠিতেছে ছলোছলি ॥
এখনো বনের গান,   বন্ধু হয় নি তো অবসান
              তবু   এখনি যাবে কি চলি ।
              ও মোর   করুণ বল্লিকা,
              ও তোর   শ্রান্ত মল্লিকা
ঝরো-ঝরো হল, এই বেলা তোর শেষ কথা দিস বলি ॥




আমার   মল্লিকাবনে  (রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)/Amar Mollikabone (Rabindranath Tagore)

জীবন যখন শুকায়ে যায় (রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)/Jibon Jokhon Shukaye jai (Rabindranath Tagore)

জীবন যখন শুকায়ে যায়
------রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


জীবন যখন শুকায়ে যায়
       করুণাধারায় এসো।
সকল মাধুরী লুকায়ে যায়,
       গীতসুধারসে এসো।
                    কর্ম যখন প্রবল-আকার
                    গরজি উঠিয়া ঢাকে চারি ধার,
                    হৃদয়প্রান্তে হে জীবননাথ,
                           শান্তচরণে এসো।
আপনারে যবে করিয়া কৃপণ
কোণে পড়ে থাকে দীনহীন মন,
দুয়ার খুলিয়া হে উদার নাথ,
       রাজ-সমারোহে এসো।
                           বাসনা যখন বিপুল ধুলায়
                           অন্ধ করিয়া অবোধে ভুলায়
                          ওহে পবিত্র, ওহে অনিদ্র,
                                  রুদ্র আলোকে এসো।


জীবন যখন শুকায়ে যায় (রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)/Jibon Jokhon Shukaye jai (Rabindranath Tagore)